Testament to atrocities

Genocide-torture museum in Khulna strives to preserve history of Liberation War Visitors look at artifacts in the museum. The photo was taken recently. Photo: STAR Dipankar Roy “I stood motionless in front of a table where a broken helmet and Pakistani currency were displayed at the martyred gallery. The currency

বিশ্বজুড়ে গণহত্যাকে রুখতে হবে

পাকিস্তানের হানাদার সেনাবাহিনী ও তাদের দোসর আলবদর, রাজাকার ও জামায়াতে ইসলামী ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালে ৯ মাসে ৩০ লাখ মানুষকে নির্বিচারে হত্যা ও পাঁচ লাখ নারীকে নির্যাতন করেছিল। এই নির্যাতন গণহত্যার শামিল। বিশ্বজুড়ে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে এবং শক্তিশালী দেশগুলোর স্বার্থে গণহত্যা এখনো হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে সচেতন হতে হবে। তরুণ প্রজন্মকে গণহত্যা

রক্ত দিয়ে লেখা ইতিহাস, ১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘরর

‘নদীতে লাশ আর রক্তের স্রোত দেখেছি। যে স্রোতে ভেসে ছিল অগণিত লাশ। কোথাও পা রাখার জায়গা নেই। নদীর পাশ দিয়েও অনেক লাশ, নদীতেও লাশ। রক্তে চারদিক লাল হয়ে গেছে। গুলিবিদ্ধ অনেকেই তখনো বেঁচে। ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন অসহায়ভাবে। ওইদিন আমাকে ঘটনাস্থলের একটি মসজিদের বারান্দায় বাড়ির পাশের এক নারী

1971 Genocide Museum Front Gate

Welcome to the genocide museum

The museum in Khulna has a rich collection of rare war photos, over 2,000 books Rare pictures and paintings depicting the genocide of Bangalees by the Pakistan army hang on the wall. There is also a rich collection of books and audio-visual materials on the ruthless massacre against the unarmed