জাতীয় গণহত্যা দিবস ২০১৮ উপলক্ষে ২৫ মার্চ বিকাল ৪.৩০ টায় জাদুঘরের মুক্তমঞ্চে ‘মুক্তিযুদ্ধ উত্তরকালে গণহত্যাকারীদের বিচারের মুখোমুখি না করায় মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তির উত্থান: এই সংকট থেকে উত্তরণে আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আলোচনায় অংশ নেন সরকারি বি এল কলেজের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক শরীফ আতিকুজ্জামান। তিনি তাঁর জ্ঞানগর্ভ বক্তৃতায় গণহত্যার স্বরূপ এবং বাংলাদেশে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসর কর্তৃক সংঘটিত গণহত্যার আন্তার্জাতিক স্বীকৃতির যৌক্তিকতা তুলে ধরেন। খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের অধ্যাপক ও শহিদ বুদ্ধিজীবীর সন্তান ড. অনির্বাণ মোস্তফা বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের পর পরই গণহত্যাকারী ও তাদের সহযোগীদের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের মুখোমুখি করা হলে আজ মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তির উত্থান হত না।’ তিনি এই অপশক্তিকে রাজনৈতিকভাবে বেলটের মাধ্যমে প্রত্যাখান করার আহ্বান জানান। তিনি শিক্ষার্থীদের সাথে প্রত্যক্ষ আলোচনায় অংশ নিয়ে গণহত্যা, গণকবর, বধ্যভূমি, ধর্ষণ, নির্যাতন প্রভৃতি বিষয়গুলো ব্যাখ্যা করেন। অনুষ্ঠানে খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের ছাত্র খাইরুল বাশার ও মাহাদী হাসান গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে তাদের অভিমত ব্যক্ত করেন। জাদুঘরের ট্রাস্টি হুমায়ুন কবির ববির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাদুঘর ট্রাস্টের সম্পাদক ডা. শেখ বাহারুল আলম।

© Genocide Museum Bd | All Rights Reserved | Developed by M Dot Media