’৭১ সালে গণহত্যায় ব্যবহৃত মোটরবাইক জাদুঘরে হস্তান্তর

১৯৭১ সালে বাংলাদেশে সংঘটিত ভয়াবহ গণহত্যায় রাজাকার বাহিনীর ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল খুলনায় প্রতিষ্ঠিত দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ও একমাত্র ‘গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘরে’ হস্তান্তর করা হয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর দোসর রাজাকার বাহিনী যশোরের মনিরামপুর উপজেলার গিরিন্দ্রনাথ ঘোষের বাড়িটি দখল করে রাজাকার ক্যাম্প ও নির্যাতন কেন্দ্র স্থাপন করে। এই কেন্দ্র

অস্থায়ী ঠিকানায় কার্যক্রম শুরু করেছে দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র গণহত্যা জাদুঘর

মুক্তিযুদ্ধের কেন্দ্রীয় বিষয় গণহত্যা ও নির্যাতন কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে নিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে আসেনি বিষয়টি। একাত্তরে এই জাতির ওপর চলা দুর্বিষহ গণহত্যা ও নির্যাতনের ইতিহাসকে সমার মাঝে ছড়িয়ে দিতে  খুলনার সাউথ সেন্ট্রাল রোডে স্থাপিত হয় দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র গণহত্যা ও নির্যাতন বিষয়ক জাদুঘরটি। বিশেষায়িত এই জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে একাত্তরের গণহত্যা ও নির্যাতনের

Genocide Museum narrates barbarism of Pak forces

Genocide Museum in Khulna, the first of its kind in South Asia, has been working to preserve the marks of barbaric mass killings by Pakistan occupation forces during the country’s war of independence in 1971. The objective of the museum is also to let the young generation know about the

রক্ত দিয়ে লেখা ইতিহাস, ১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘরর

‘নদীতে লাশ আর রক্তের স্রোত দেখেছি। যে স্রোতে ভেসে ছিল অগণিত লাশ। কোথাও পা রাখার জায়গা নেই। নদীর পাশ দিয়েও অনেক লাশ, নদীতেও লাশ। রক্তে চারদিক লাল হয়ে গেছে। গুলিবিদ্ধ অনেকেই তখনো বেঁচে। ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন অসহায়ভাবে। ওইদিন আমাকে ঘটনাস্থলের একটি মসজিদের বারান্দায় বাড়ির পাশের এক নারী