১৯ মে ২০১৭ তারিখে খুলনার বিএমএ মিলনায়তনে ‘গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্র’একটি জাতীয় সেমিনারের আয়োজন করে। ‘১৯৭১ সালের শহিদ সন্তানদের আর্তি ও সংগ্রাম ’শীর্ষক সেমিনারটিতে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহিদ বুদ্ধিজীবি ডা: আলীম চৌধুরীর কন্যা ডা: নুজহাত চৌধুরী, শহিদ বুদ্ধিজীবি অধ্যাপক মুনীর চৌধুরীর পুত্র জনাব আসিফ মুনীর, শহিদ বুদ্ধিজীবি সাংবাদিক কাজী সিরাজউদ্দীন হোসেনের পুত্র ড. তৌহিদ রেজা নূর, শহিদ বুদ্ধিজীবি সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের সন্তান জনাব মো. সুমন জাহিদ এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ১৯৭১:গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্ট- এর সভাপতি ড. মুনতাসীর মামুন। ট্রাস্ট এর সম্পাদক জনাব ডা. শেখ বাহারুল আলম স্বাগত বক্তব্য রাখেন। সেমিনারের সঞ্চালনায় ছিলেন সরকারী বি এল কলেজ এর সহযোগী অধ্যাপক জনাব শংকর কুমার মল্লিক। সেমিনারে আলোচকবৃন্দ মুক্তিযুদ্ধের সময়কালীন তাঁদের ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। শহিদ সন্তানগণ তাঁদের পিতা-মাতা হারানোর বেদনা এবং যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে অনাথ অবস্থায় তাঁদের বেড়ে ওঠার নিদারুণ সংগ্রাম ও বেদনার কথা বর্ণনা করেন। ড. মাহবুবর রহমান ১৯৭১ সালে নিহত এ সকল সূর্য সন্তানদের হারিয়ে বাঙ্গালী জাতীর যে অপরিসীম ক্ষতি সাধিত হয়েছে সে বিষয়ে আলোকপাত করেন। সেমিনারে সভাপতি তাঁর বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তীকালে স্বাধীন বাংলাদেশে ঘাতক এবং দালালদের নির্মূল করতে যে নতুন সংগ্রাম ও যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছেন তাঁর বর্ণনা দেন। নতুন প্রজন্মকে নতুন ঘাতক দালালদের চিহ্নিত করার আহবান জানানোর মাধ্যমে সেমিনারের সমাপ্তি ঘোষণা করেন। এ সেমিনারে খুলনা শহরের গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ প্রায় ২০০ জন উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের মধ্যে খুলনা জেলার (খুলনা-১ আসনের) মাননীয় সংসদ সদস্য পঞ্চানন বিশ্বাস ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ উল্লেখযোগ্য।

© Genocide Museum Bd | All Rights Reserved | Developed by M Dot Media